শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ০৭:০১ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
Logo দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের উন্নয়নকে অগ্রসর করতে ইন্দোনশিয়া সফরে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী Logo ১৯২৪ কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ফা’ইউয়ান মন্দির পরিদর্শন করেন Logo শুরু হয়েছে বেইজিং আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব Logo চীনা প্রধানমন্ত্রীর সাথে বেইজিংয়ের মহাগণভবনে জার্মান চ্যান্সেলরের বৈঠক Logo চীন সফর করলেন জার্মানির চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ Logo চতুর্থ চীন আন্তর্জাতিক ভোগ্যপণ্য মেলা চলবে ১৮ এপ্রিল Logo ২১৫ টি দেশ ক্যান্টন মেলা কুয়াং চৌতে নিবন্ধন করেছেন Logo রামগঞ্জে নানান আয়োজনে পহেলা বৈশাখ পালিত Logo সেপটিক ট্যাংকে নেমে প্রাণ গেল বাড়ির মালিকসহ পরিচ্ছন্নতাকর্মীর Logo শোক সংবাদ: বীর মুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী পাইনের ইন্তেকাল
নোটিশঃ
যে কোন বিভাগে প্রতি জেলা, থানা/উপজেলা এবং বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে ‘bdpressnews.com ’ জাতীয় পত্রিকায় সাংবাদিক নিয়োগ ২০২৩ চলছে। বিগত ১ বছর ধরে ‘bdpressnews.com’ অনলাইন সংস্করণ পাঠক সমাজে জনপ্রিয়তা পেয়েছে। পাঠকের সংখ্যায় প্রতিনিয়ত যোগ হচ্ছে নানা শ্রেণি-পেশার হাজারো মানুষ। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে প্রতিষ্ঠানটিতে কাজ করছে তরুণ, অভিজ্ঞ ও আন্তরিক সংবাদকর্মীরা। এরই ধারাবাহিকতায় ‘bdpressnews.com‘ পত্রিকায় নিয়োগ প্রক্রিয়ার এ ধাপ

ঐতিহ্যবাহী চীনা ঔষধ আর কম্বোডিয়ায় বৈদেশিক সাহায্যের অভিজ্ঞতা আমার বড় অর্জন : স্যু ফেং ছিন

জিনিয়া: / ১১৫ Time View
Update : শুক্রবার, ১৭ মার্চ, ২০২৩, ৮:২০ অপরাহ্ন

জিনিয়া: স্যু ফেং ছিন হচ্ছেন চীনের জাতীয় রাজনৈতিক পরামর্শ সম্মেলন বা সিপিপিসিসি’র সদস্য, চায়না একাডেমি অফ চাইনিজ মেডিক্যাল সায়েন্সেসের সিইউয়ান হাসপাতালের ভাইস প্রেসিডেন্ট-স্যু ফেং ছিন। সম্প্রতি চায়না মিডিয়া গ্রুপের সাংবাদিক জিনিয়া তাঁর একান্ত সাক্ষাৎকার নিয়েছেন। তিনি বিশেষ করে মহামারী চলাকালে কম্বোডিয়ায় চিকিৎসাদানের অভিজ্ঞতা শেয়ার করেছেন।
জিনিয়া: ডিন স্যু, আমাকে সময় দেওয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ। আপনার নানা পরিচয় আছে, আপনি একটি হাসপাতালের ডিন এবং সিপিপিসিসি’র সদস্য। এ অবস্থায় কীভাবে আপনার কাজের মধ্যে সমন্বয় করেন। আপনি আমাদের দর্শকদের জন্য কিছু বলুন।
ডিন: ২০২২ সালে আমি মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াই করে জাতীয় সহায়তা মিশন চালানোর জন্য চার মাস কম্বোডিয়ায় ছিলাম। কম্বোডিয়ায় থাকার সময়, আমি আফ্রিকার মতো অন্যান্য মেডিকেল টিমের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করতাম। এই বছর, আমি নতুন যুগের প্রেক্ষাপটে বিদেশি সহায়তা মেডিকেল দলের উচ্চ-মানের চিকিৎসক- এমন একটি পরামর্শ পেশ করেছি। এ ছাড়া, আমি ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধের কাজে নিযুক্ত আছি, তাই আমি কম্বোডিয়ায় আমার বৈদেশিক সাহায্যের অভিজ্ঞতার সাথে সম্পর্কিত ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধের আন্তর্জাতিক প্রভাবকে বাড়ানোর জন্য বহু-দলীয় সহযোগিতার পরামর্শও দিয়েছি।
জিনিয়া: আপনি কি আপনার বিদেশে সহায়তাকারী চিকিৎসার অভিজ্ঞতা আমাদের বলতে পারেন? মহামারীর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে কম্বোডিয়ার সাহায্যের সময়, কী কী অভিজ্ঞতা আপনার মনের ওপর গভীর ছাপ ফেলেছে।
ডিন: সেই সময়ে কম্বোডিয়ায় মহামারী পরিস্থিতি খুব গুরুতর ছিল। তখন কম্বোডিয়ার জনসংখ্যার মধ্যে এই সংক্রমণের হার ছিল কমপক্ষে ৩০ শতাংশ; যা প্রধানত ওমিক্রন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ। আমরা স্বাভাবিক চিকিৎসার পাশাপাশি মহামারী প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণের মতো অনেক জরুরি পরিকল্পনা প্রণয়ন করি। কিছু চীনা ও বিদেশি চীনা আছে, এবং তারা খুব খুশি হয় যখন তারা জানতে পারে যে, আমরা চলে এসেছি। আমরা আসার পর বলা উচিত যে, আমরা তাদের একটি আশ্বাস দিয়েছি। এ ছাড়া, আমার একজন স্থানীয় রোগী আছে, যার করোনারি হৃদরোগ আছে। তিনি বিদেশি একজন তৃতীয় প্রজন্মের চীনা, তবে তিনি কিছু ম্যান্ডারিন ভাষা বলতে পারেন এবং চীনা ভাষায় আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। তিনি তার রোগের সমাধানে চাইনিজ ওষুধ ব্যবহার করার আশা করেন। সেই সময় তিনি বুকে টান, শ্বাসকষ্ট ও বুক ধড়ফড়ের মতো লক্ষণগুলি অনুভব করেন। দুই সপ্তাহ চীনা ওষুধ খাওয়ার পর, তিনি বলেন যে, চীনা ওষুধ আশ্চর্যজনক এবং তিনি এখন গলফ খেলতে পারেন। এই ঘটনাটি আমার মনে গভীর প্রভাব ফেলেছিল। কম্বোডিয়ার লোকেরা আমাদের নাম জানে না, তারা সবাই আমাদের চাইনিজ ডাক্তার বলে ডাকে। তারা সহজ চীনা ভাষায় আপনাকে ধন্যবাদ বলে, চীনা ডাক্তারদের ধন্যবাদ। এটি এমন ভাষা যা আমরা সবচেয়ে বেশি শুনেছি।
জিনিয়া: আমি জানি যে, আপনি চীনা ওষুধ সহায়তা মেডিকেল দলের নেতা। আমাদের শ্রোতা ও দর্শকরাও চীনা ওষুধ-এর নিয়ে খুব আগ্রহী। তাই বিদেশি সাহায্যকারী চিকিৎসার প্রক্রিয়া চলাকালীন স্থানীয় কম্বোডিয়ান বাসিন্দাদের চীনা ওষুধ-এর প্রতি মনোভাব কেমন ছিল?
ডিন: আমরা যখন প্রথম সেখানে গিয়েছিলাম, আমরা মহামারীর বিরুদ্ধে চীনের লড়াইয়ের অভিজ্ঞতা তুলে ধরি। তখন কোনো পশ্চিমা ওষুধ ছিল না এবং কোনো নির্দিষ্ট ওষুধ ছিল না। তাই কম্বোডিয়ার সাধারণ মানুষ নভেল করোনাভাইরাস আক্রান্ত হলে তারা ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধ দিয়ে তার চিকিৎসা করেছিলেন।
আমরা যখন কম্বোডিয়া গিয়েছিলাম, তখন দেশটিতে মহামারীর শীর্ষ অবস্থা চলছিল। কম্বোডিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী ম্যাম বুনহেং (Mam Bunheng) বলেন, কম্বোডিয়ায় কোভিডের চিকিত্সার ক্ষেত্রে, ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধ বাড়িতে একটি অপরিহার্য পণ্য এবং আপনার সঙ্গে থাকা উচিত। তার কথাগুলো আমার মনে গভীর ছাপ ফেলে। সেই সময়, কম্বোডিয়ার প্রধানমন্ত্রী হুন সেন আমাদের চীনা মেডিসিন বিভাগ পরিদর্শন করেন। সেদিন আমাদের চীনা মেডিসিন বিভাগের যাত্রা শুরু হয়। সেই সময়, আমাদের মেডিকেল টিম নিয়ে কম্বোডিয়ার সংবাদ কভারেজ ছিল একটি ঘূর্ণায়মান লাইভ সম্প্রচার। সে সময় প্রধানমন্ত্রী হুন সেনও আশা করেন যে, ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধ কম্বোডিয়ায় স্থায়ী হতে পারে এবং কম্বোডিয়ার জনগণকে স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা দিতে পারে। তাই অনেক কম্বোডিয়ান চীনা ওষুধ, বিশেষ করে আকুপাংচার অভিজ্ঞতা নিতে আসে। আমরা স্বাধীনভাবে কম্বোডিয়ায় একটি বহুভাষিক এবং সময়-বিভাগে মেডিকেল অ্যাপয়েন্টমেন্ট সিস্টেম তৈরি করি। সেদিন থেকেই আমাদের সব আকুপাংচার অ্যাপয়েন্টমেন্ট সম্পূর্ণ বুকিং হয়ে যেত। এতে দেখা যায় যে, তারা আমাদের আকুপাংচার এবং আমাদের ম্যাসেজ নিয়ে বিশেষভাবে আগ্রহী। রাজপরিবারের একজন সদস্য ছিলেন, যিনি পিঠের ব্যথা নিয়ে হুইলচেয়ারে বসে এসেছিলেন। তবে, তিনি শেষ পর্যন্ত ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধের ম্যাসেজ পেয়ে উঠে দাঁড়ান। তিনিও আমাদের প্রচারে খুব ভাল সহায়তা দিয়েছেন এবং প্রচুর রোগী নিয়ে এসেছেন। এ ছাড়া, আরও একজন রোগী ছিলেন যিনি বহু বছর ধরে পিঠের ব্যথায় ভুগছিলেন। তিনি ঐতিহ্যবাহী চাইনিজ মেডিসিন বিভাগে আসেন এবং এক দফা চিকিৎসার পর তিনি সুস্থ হয়ে ওঠেন। তারপর তিনি নিজেই একটি নিবন্ধ লিখেন এবং যা কম্বোডিয়ান সংবাদপত্রে প্রকাশ হয়। চীনা ওষুধ কম্বোডিয়ায় খুব জনপ্রিয় হয়ে ওঠে।
জিনিয়া: কম্বোডিয়ার এই অভিজ্ঞতা বিদেশি সাহায্যের চিকিৎসা এবং ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধের বিকাশ নিয়ে আপনার চিন্তাভাবনা জানতে চাই। একজন ডাক্তার ও সিপিপিসিসি’র একজন সদস্য হিসেবে, আপনি কিভাবে এই চিন্তাগুলোকে কাজে পরিণত করেন—যাতে এই দুইটি কাজের উন্নয়ন প্রচার করা হবে?
ডিন: আমি মনে করি, এর প্রধান কারণ হল আমাদের দেশ নিজেই একটি নীতি প্রণয়ন করেছে যাতে ‘এক অঞ্চল, এক পথ’ বরাবর দেশগুলোর উচ্চ-মানের ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধের একীকরণের প্রচার করা যায়। আমাদের কাছে কম্বোডিয়ায় ডাক্তারদের অনুশীলন করার এই লাইসেন্স আছে, যা আমাদের একটি খুব ভাল অনুশীলন সুযোগ দেয়। আমাদের কিছু বিদেশি সাহায্যকারী মেডিকেল টিম প্রধানত ‘সহায়ক চিকিৎসা’ সেবা দেয়। কারণ, বিভিন্ন দেশের আইন অনুযায়ী ভিন্ন চিকিত্সাপদ্ধতি অনুশীলন করা যায় না। তাই যা করা যায়, তা সীমিত।
তাই আমি ভাবছি, কীভাবে চীনা ওষুধকে আরও ভালভাবে ‘বাইরে’ নেওয়া যায় ও প্রচার করা যায়। আমরা কোম্বোডিয়াতেও কিছু চেষ্টা করেছি। যেমন, আমরা কম্বোডিয়ায় একটি চাইনিজ মেডিসিন টেকনোলজিতে ট্রেনিং কোর্স করেছি। আমরা একশ’ জন স্থানীয় কম্বোডিয়ান মেডিকেল কর্মীদের প্রশিক্ষণ দিতে চাই, যাতে তারা চাইনিজ মেডিসিন বুঝতে পারে এবং চাইনিজ মেডিসিন ব্যবহার করতে পারে। এটি খুবই জনপ্রিয়, এবং আমরা আমাদের চীনা ওষুধের কৌশল শেখার জন্য ১৩০জনেরও বেশি স্থানীয় কম্বোডিয়ান চিকিৎসা কর্মী নিয়োগ করেছি। তারা খুব আগ্রহী। আমি মনে করি, এটি আমাদের চীনা ওষুধকে বিশ্বমুখী করা এবং একটি স্থানীয় মেডিকেল টিম তৈরিতে সহায়তা করবে।
একই সময়, আমরা প্রচার করার জন্য এবং ঐতিহ্যবাহী চীনা ওষুধের কিছু স্বাস্থ্য-সংরক্ষণের ধারণা শেয়ার করার জন্য কম্বোডিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে যাই। বিশেষ করে কিছু কম্বোডিয়ান যারা চাইনিজ ভাষা শিখছে, আমাদের চীনা ওষুধের গল্প থেকে তারা বুঝতে পারে।
আমি মনে করি এগুলি আমাদের চীনা ওষুধকে ‘এক অঞ্চল, এক পথ’ বরাবর দেশগুলিতে একটি উচ্চ-মানের উন্নয়নকে আরও ভালভাবে প্রচার করতে সাহায্য করবে।
সূত্র: চায়না মিডিয়া গ্রুপ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category
Design & Developed by : BD IT HOST